রাজশাহীতে বিয়ের দাবিতে স্কুলছাত্রীর অনশন

শেয়ার করুন...

রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় নবম শ্রেণি পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রী অনশনে বসেছে। সোমবার সকাল থেকে উপজেলার গোপালপুর বোগদামারি গ্রামের একটি বাড়ির সামনে বসে আছে ১৫ বছর বয়সী এই মেয়েটি। তার দাবি, এই বাড়ির রুবেল হোসেন নামের এক ছেলের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক। রুবেল বিয়ে না করলে সে উঠবে না।

মেয়েটি উপজেলারর চর আষাড়িয়াদহ ইউনিয়নের দিয়াড় মানিকচক উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী। সে বলছে, একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়ে রুবেলের সঙ্গে তার পরিচয়। তারপর প্রেম। গত জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষার সময় চর থেকে পারে এলে রুবেল বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তার সঙ্গে ঘনিষ্ট হয়েছে। কিন্তু এখন আর বিয়ে করতে চাইছে না। বাধ্য হয়ে সে অনশনে বসেছে।

মেয়েটি জানিয়েছে, জেএসসি পরীক্ষা শেষে সে পদ্মার ওপারে নিজের বাড়ি চলে যায়। এরপর যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে রুবেল। সোমবার তার বাড়িতে এসেও তাকে পাওয়া যায়নি। তাই সে বসে আছে। বিয়ে না করলে সে আর এই মুখ নিয়ে বাড়ি ফিরতে পারবে না। তখন আত্মহত্যা করতে হবে।

রুবেলের মা বলেন, ‘আমার ছেলের সাথে এই মেয়ের একবছর আগে সম্পর্ক ছিল। কিন্তু এখন কোন সম্পর্ক নাই।’ স্থানীয় ইউপি সদস্য সাদিকুল ইসলাম জানান, ছেলে ও মেয়ে দুজনেরই বিয়ের বয়স হয়নি। তাই দুজনের অভিভাবকের সঙ্গে কথা বলে তিনি মেয়েটিকে বাড়ি পাঠানোর চেষ্টা করছেন।

গোদাগাড়ী সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আবদুর রাজ্জাক খান বলেন, ‘এ রকম কোন ঘটনা জানা নেই। তবে খোঁজ নিচ্ছি।’


শেয়ার করুন...