নোয়াখালীতে চালের জন্য ইউ.পি ঘেরাও: আহত ৭

শেয়ার করুন...

নোয়াখালীতে ভিজিএফের চালের জন্য ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) কার্যালয় ঘেরাও করেছেন জেলেরা। এ সময় চেয়ারম্যানের অনুসারীদের পিটুনিতে সাত জেলে আহত হয়েছেন।

সোমবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে সদর উপজেলার অশ্বদিয়া ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, অশ্বদিয়া ইউনিয়নে ১৬০ জন জেলের জন্য ভিজিএফ কর্মসূচির আওতায় মাসে ৪০ কেজি করে চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। কিন্তু গত ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসের বরাদ্দ না পেয়ে সোমবার দুপুরে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় ঘেরাও করেন জেলেরা।

এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম হোসেন বাবলু পরিষদ থেকে বের হলে চালের জন্য ঘিরে ধরেন জেলেরা। একপর্যায়ে চেয়ারম্যানের অনুসারীরা জেলেদের ধাওয়া ও পিটুনি দেন। এতে সাত জেলে আহত হন।

আহত জেলেদের মধ্যে জবিউল্লা, সালাউদ্দিন, সহিদ উল্লা, হারুন, কহিনুর, সেলিম ও কতবানুকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

খবর পেয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম সরদার, সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কাজী মো. আবদুর রহিম অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কাজী মো. আবদুর রহিম বলেন, চালের জন্য জেলেরা ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়েছে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। পুলিশ যাওয়ার আগেই অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফুল ইসলাম সরদার বলেন, জেলেদের জন্য বরাদ্দকৃত দুই মাসের চাল উত্তোলনে দেরি হওয়ায় যথাসময়ে বিতরণ করা যায়নি। যার কারণে জেলেদের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়। উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার উপস্থিতিতে দ্রুত চাল বিতরণের আশ্বাসে শান্ত হন জেলেরা।

অশ্বদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম হোসেন বাবলু বলেন, জেলেরা কোনো কিছু না বুঝেই ইউনিয়ন পরিষদের সামনে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। তাদের জন্য বরাদ্দকৃত চাল যথাসময়ে বিতরণ করা হবে।


শেয়ার করুন...