চাল নিতে এসে চেয়ারম্যানের হাতে লাঞ্ছিত

শেয়ার করুন...

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে করোনা সংকটে খেটে খাওয়া মানুষের মাঝে সরকারি বরাদ্ধকৃত চাল নিতে এসে ইউপি চেয়ারম্যানের হাতে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হয়েছেন শিল্টু আলী (৩৫) নামে এক দিনমজুর। ত্রাণের চাল না দিয়ে ওই ব্যক্তিকে ইউপি চেয়ারম্যান কাবিল উদ্দীন শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাড়িয়ে দেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার দুপুরে উপজেলার দোড়া ইউনিয়ন পরিষদে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাটি এলাকায় চাউর হলে এলাকাবাসীর মাঝে চরম সমালোচনা ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। শিল্টু দোড়া ইউনিয়নের (৫ নং ওয়ার্ড) দয়ারামপুর গ্রামের ওহাব আলীর পুত্র।

দিনমজুর শিল্টু আলী জানান, ত্রাণের চালের জন্য চেয়ারম্যান কাবিল উদ্দীনের কাছে আকুতি জানিয়েছিলাম। শুক্রবার সকালে ইউনিয়ন পরিষদে ত্রাণের চাল দেওয়া শুরু হলে চেয়ারম্যান তাকে বাড়িতে লোক পাঠিয়ে পরিষদে ডেকে নিয়ে আসেন এবং তার আইডি কার্ড ও খাতায় স্বাক্ষর নেন। এরপর তাকে জানানো হয় তিনি উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছ থেকে ত্রাণ নিয়েছেন, এ কারনে ত্রাণ পাবেন না।

ত্রাণ না দিলে কেন তাকে বাড়ি থেকে ডেকে এনে স্বাক্ষর নেওয়া হলো। এ কথা বলতেই চেয়ারম্যান তার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে চড়-থাপ্পড় মারতে শুরু করেন। এক পর্যায়ে চেয়ারম্যান তাকে পরিষদ থেকে চলে যেতে বলেন। তা না হলে তাকে জুতা পেটা করার হুমকি দেন।

শিল্টু বলেন, গরীব, অসহায় বলে চেয়ারম্যান জনসম্মুখে আমাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেছেন। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার দাবি করেন।

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান কাবিল উদ্দীন জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিখিত নির্দেশ দিয়েছেন এক বার ত্রাণ পেয়েছে এমন ব্যক্তিকে দ্বিতীয়বার ত্রাণ দেওয়া যাবেনা। উপজেলা চেয়ারম্যান শিল্টুকে ত্রাণ দিয়েছেন। আমি বিষয়টি জানার পর তিনি আবার আমার কাছে ত্রাণের জন্য আসেন। তাই তাকে একটু বকাবকি করেছি।


শেয়ার করুন...