আটকেপড়া ছেলেকে আনতে মায়ের ১৪০০ কিমি স্কুটি-যাত্রা

শেয়ার করুন...

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব কত কিছুই না দেখাল! স্বজনদের লাশ ফেলে পালানোর মতো ঘটনার সাক্ষী তো খোদ বাংলাদেশই। কিন্তু ব্যতিক্রমও কি নেই? অবশ্যই আছে।

ভালোবাসা, সম্পর্ক, পরিবারের বন্ধন যে কতটা দৃঢ় হতে পারে, এর উজ্জ্বল দৃষ্টান্তও আছে। আর তা দেখালেন ভারতের তেলেঙ্গানার রাজ্যের এক মা, নাম তাঁর রাজিয়া বেগম। ১৪০০ কিলোমিটার স্কুটি চালিয়ে লকডাউনে আটকে পড়া তরুণ ছেলেকে বাড়ি ফিরিয়ে এনে রীতিমতো অসাধ্যসাধন করলেন এই মা।

ভারতের সংবাদপত্র ‘ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’–এ রাজিয়া বেগমের তিন দিনের দুঃসাহসিক যাত্রার বিষয়টি উঠে এসেছে। তিনি ৬ এপ্রিল সোমবার সকালে যাত্রা শুরু করেন।

ছেলেকে নিয়ে বাসায় ফেরেন ৮ এপ্রিল বুধবার সন্ধ্যায়। সাহসী এই নারীকে স্কুটি চালাতে হয় ২৩ থেকে ২৪ ঘণ্টা। এ হিসাবে ঘণ্টায় তাঁকে পাড়ি দিতে হয়েছে ৬০ কিলোমিটারের মতো।

ভারতের তেলেঙ্গানা প্রদেশের নিজামাবাদের বোধান থেকে অন্ধ্র প্রদেশের নেল্লোর। দূরত্ব ৭০০ কিলোমিটার হবে। আসা-যাওয়া ধরলে ১ হাজার ৪০০ কিলোমিটার। ভারতের ট্রেন ব্যবস্থা কিংবা সড়ক বিবেচনায় নিলে তা কিছুই নয়।

কিন্তু এটা তো স্বাভাবিক অবস্থার কথা! হ্যাঁ বলা হচ্ছে করোনাভাইরাসকালের কথা। অর্থাৎ লকডাউন যুগের কথা। যেখানে বাস, ট্রেন সবই বন্ধ। ভারতে ২৩ মার্চ থেকে বেশির ভাগ রাজ্যে লকডাউন শুরু হয়। এখনো তা বলবৎ আছে।


শেয়ার করুন...