কালীগঞ্জে কারেন্ট পোকার আক্রমনে দিশেহারা ধান চাষীরা

শেয়ার করুন...

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ এলাকায় ধানের জমি দেখে মনে করছে ফলন বাম্পার হবে কিন্তু কারেন্ট পোকায় ক্ষেত শেষ করে দিয়েছে। কারেন্ট পোকার আক্রমণের শিকার হয়েছে বারোপাখিয়া গ্রামের ওলিয়ার রহমান, বেলাট গ্রামের ফজলুর রহমান, খড়িকাডাঙ্গা গ্রামের কবির হোসেন, বালিডাঙ্গার কবির হোসেনসহ উপজেলার শতশত কৃষক।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, আবহাওয়ার কারণে কারেন্ট পোকার আক্রমণ দেখা দিয়েছে। উপজেলা কৃষি অফিসের তথ্য অনুযায়ী, এ মৌসুমে ১৮ হাজার ৫৫০ হেক্টর জমিতে আমন ধান চাষ হয়েছে। অধিকাংশ জমিতে কারেন্ট পোকা ছড়িয়ে পড়েছে।

অবশিষ্ট ধান বাঁচাতে কীটনাশক স্প্রে করা হচ্ছে। উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মতিয়ার রহমান জানান, ভ্যাপসা গরম এবং বর্ষা হয়েছে, এ কারণে আমন ক্ষেতে বাদামী গাছ ফড়িং বা কারেন্ট পোকা আক্রমণ করেছে। স্যাঁতসেঁতে জমিতে এ পোকার আক্রমণ বেশি হয়। কৃষকরা বলছেন, এবার ধানের বাম্পার ফলন হবার কথা ছিল, কিন্তু পোকার আক্রমনে জমিতে চিটার পরিমান বেশি হয়েছে।

যে কারণে আবাদের লক্ষমাত্রা অর্জিত হবে না। আবার অনেক কৃষক বলছে এবার চিটা ও পোকার আক্রমণের কারণে খরচের টাকা ঊঠবেনা ফলে এ আবাদে লোকসান খেতে হবে। তিনি আরো জানান, এ পোকা গাছের গোড়ায় আক্রমণ করে। এরপর নরম কান্ডে ছিদ্র করে। এতে ধান গাছের হরমোন ক্ষয় হয়ে যায়। ধান গাছ মাটি থেকে খাদ্যরস নিতে পারে না। এ কারণে গাছ গুলো শুকিয়ে বাইলের ধান চিটা হয়ে যায়। কালীগঞ্জ উপজেলার খালকুলা গ্রামের গোলাম রসুল ২৫ বিঘা জমি বর্গা নিয়ে ধানের আবাদ করেছিল, এ আবাদ করতে গিয়ে অনেক টাকা লোন নিয়েছে।

তিনি এখন মহা চিন্তায় পড়েছে ২৫ বিঘা জমিতে যে পরিমান ধান হবার কথা ছিল তা পোকার আক্রমণের জন্য ফলন ঠিকমত হবে না। বর্গা নেওয়া জমির মালিকদের টাকা ও পরিশোধ করতে পারেনি। তিনি প্রতিটি জমিতে ঘুরে দেখতে পেরেছেন এবার পোকার কারণে ধানে চিটার ভাগ অনেক বেশি। ফলে উৎপাদনের লক্ষমার্ত্রা অর্জিত হবে না বলে আশঙ্কা করছে। এ ধান রোপন করতে যে টাকা ব্যায় হয়েছে এবং জমি থেকে ধান পাবার পরে খরচের টাকা ঘরে ফিরবে না বলে মনে করছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাহিদুল করিম জানান, আবহাওয়ার কারণে কারেন্ট পোকা আক্রমণ করেছে। কৃষকদের সচেতন করা হচ্ছে। আক্রান্ত ধানক্ষেতে প্লেনাম, হুপারসট, সপসিন, নিপসিন স্প্রে করার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।


শেয়ার করুন...